49th National Cooperatives Day – 2020

National Cooperatives Day

Department Of Cooperatives

Venue: Bangabandhu International Conference Center (BICC)

Date: 07-11-2020
The Event By: Reflect Bangla

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় আজ (শনিবার) দেশে ৪৯তম জাতীয় সমবায় দিবস পালিত হবে বলে জানিয়েছে বাসস।

দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘বঙ্গবন্ধুর দর্শন, সমবায়ে উন্নয়ন’।

দিবসটির প্রাক্কালে রাষ্ট্রপতি এম আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ পৃথক বাণীতে সকল সহযোগীদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ তার বাণীতে বলেছেন, গ্রামীণ দারিদ্র্য বিমোচন, নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি, পণ্যের বাজারজাতকরণ এবং পণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিতকরণসহ নারীর ক্ষমতায়নে সমবায়গুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সমবায়কে উন্নয়নের অন্যতম সেরা অস্ত্র হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিলেন।

আবদুল হামিদ আরও বলেন, তিনি (বঙ্গবন্ধু) দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য একটি গণমুখী সমবায় আন্দোলনের স্বপ্ন দেখেছিলেন।

বাংলাদেশকে একটি সমৃদ্ধ জাতিতে পরিণত করতে সমবায় কার্যক্রমকে আরও প্রাণবন্ত, সক্রিয় ও সময়োপযোগী করতে সকলকে আরও সক্রিয় ও আন্তরিক হওয়ার আহ্বান জানান রাষ্ট্রপতি।

সমবায়ের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বাণীতে বলেন, দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে সমবায়গুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সংবিধানের ১৩ (বি) অনুচ্ছেদে সমবায়কে সম্পত্তির মালিকানার দ্বিতীয় খাত হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে সমবায়কে গণমুখী আন্দোলনে পরিণত করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, দেশের মানুষের পুষ্টির চাহিদা মেটাতে ১৯৭৩ সালে ‘সমবায় ডেইরি প্রজেক্ট’ নামে দুগ্ধ শিল্প উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে পাঁচটি দুগ্ধ উৎপাদনকারী এলাকায় দুধ প্রক্রিয়াজাতকরণ কারখানা স্থাপন করা হয়।

তিনি আরও বলেন, আজকের ‘মিল্ক ভিটা’ বঙ্গবন্ধুর সুদূরপ্রসারী উদ্যোগের ফসল।

তিনি বলেন, জাতির পিতার পদাঙ্ক অনুসরণ করে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার সমবায়ের মাধ্যমে দারিদ্র্য বিমোচনের পাশাপাশি গ্রামীণ উন্নয়নে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

“আমরা 1997 সালে বঙ্গবন্ধু দারিদ্র্য বিমোচন প্রশিক্ষণ কমপ্লেক্স প্রতিষ্ঠা করি এবং পরবর্তীতে 2012 সালে একটি আইন প্রণয়নের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটিকে একটি পূর্ণাঙ্গ একাডেমিতে রূপান্তরিত করি,” তিনি বলেন।

তিনি আরও যোগ করেছেন যে সরকার গ্রামীণ দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশন আইন, 1999 প্রণয়ন করেছে।

সরকার সমবায় সমিতি আইন-2001 এবং জাতীয় সমবায় নীতি, 2012 প্রণয়ন করেছে, তিনি বলেন, তখন সরকার সমবায় সমিতি (সংশোধন) আইন, 2013 এবং বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড আইন পুনঃপ্রণয়ন করে, 2018।

তিনি বলেন, ২০০৯ সালে ক্ষমতা গ্রহণের পর আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার আমার বাড়ি আমার খামার প্রকল্প গ্রহণ করে।

তিনি বলেন, বর্তমানে এই প্রকল্পের আওতায় ১ লাখ ২১ হাজার ১৪২টি সমবায় সমিতি গঠন করা হয়েছে যেখানে উপকারভোগী সদস্য পরিবার ৫৬ লাখ ৪১ হাজার।

দলের নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষিত ‘আমার গ্রাম, আমার সহ’র প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সমবায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, আমরা সমবায় খাতে বাজেট বাড়িয়েছি, সমবায়ীদের প্রশিক্ষণ দিয়েছি এবং আর্থিক ও বস্তুগত সহায়তার মাধ্যমে দারিদ্র্য বিমোচনসহ সমবায়ীদের জীবনমান ও সামাজিক জীবনযাত্রার মানোন্নয়নে অগ্রগতি করেছি। অব্যাহত

“আমাদের প্রচেষ্টার ফলে দিন দিন সমবায় সমিতি ও সমবায়ের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে এবং এখন সমবায় সমিতির সংখ্যা 1,90,534 এবং সদস্য সংখ্যা 1,14,83,747 এ উন্নীত হয়েছে।” সে যোগ করল.

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বর্তমান সরকার বিভিন্ন সমবায়ভিত্তিক উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করেছে।

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালিত হবে।

সমবায় বিভাগ যথাযথভাবে দিবসটি পালনের জন্য বিস্তৃত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়েও দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *